পান্তার যত ‘ম্যাজিক’!

প্রকাশিত: ২৮-০৩-২০১৮, সময়: ১৩:৩৬ |
Share This

পান্তা ভাত না-কি ম্যাজিকের মতো কাজ করে। যাবতীয় জীবনীশক্তি না-কি পান্তা ভাতে- এমনটাই মনে করছেন চিকিৎসকরা। ‘পান্তা ভাতের জল আর তিন পুরুষের বল’- এমন একটা প্রবাদ কিন্তু যথেষ্ট প্রচলিত। যারা নিজেরা পান্তা খেয়েছেন এবং মুরুব্বিদের দেখেছেন পান্তা খেতে তাঁরা অনেকেই এই ছড়ার বিষয়ে অবগত আছেন। আর সত্যিই ঠিক কী গুণাগুণ বা নিউট্রিশন ভ্যালু আছে পান্তা ভাতে- তা একটু জেনে নেওয়া যাক।

ভারতের প্রথম মিস্টার ইউনিভার্স মনোহর আইচ শতবর্ষী ছিলেন। তাঁর দীর্ঘ জীবনের গোপন রহস্য সম্পর্কে বলতে গিয়ে ‘পকেট হারকিউলিস’-খ্যাত মনোহর আইচ বলেছিলেন, তাঁর দীর্ঘ ও বলিষ্ঠ জীবনের অন্যতম সিক্রেট না-কি এই পান্তা ভাত। তবে তাঁর মতো বলিষ্ঠ জীবনের জন্য নয়, উজ্জ্বল ত্বক আর মেদহীন সুন্দর শরীরের জন্য যে পান্তা ভাত জরুরি- সেটা ইতিমধ্যে প্রমাণিত।

কী আছে পান্তায়? সম্প্রতি ভারতের আসাম কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন গবেষক একটি পরীক্ষায় দেখেছেন- ১২ ঘণ্টা ভাত ভিজিয়ে রাখলে ১০০ গ্রাম পান্তায় ৭৩.৯১ মিলিগ্রাম আয়রন তৈরি হয়। সেখানে সমপরিমাণ গরম ভাতে আয়রন থাকে মাত্র ৩.৪ মিলিগ্রাম। এ ছাড়াও ১‌০০ গ্রাম পান্তা ভাতে পটাশিয়ামের পরিমাণ বেড়ে হয় ৮৩৯ মিলিগ্রাম। আর ক্যালসিয়ামের পরিমাণ বেড়ে হয় ৮৫০ মিলিগ্রাম। যেখানে সমপরিমাণ গরম ভাতে ক্যালসিয়াম থাকে মাত্র ২১ মিলিগ্রাম।

এ ছাড়া পান্তা ভাতে সোডিয়ামের পরিমাণ কমে হয় ৩০৩ মিলিগ্রাম। ঠিক একই পরিমাণ গরম ভাতে তা থাকে ৪৭৫ মিলিগ্রাম।

মার্কিন নিউট্রিশন অ্যাসোসিয়েশন জানাচ্ছে, ভাত পানিতে ভিজিয়ে রাখলে পাকস্থলির প্যানক্রিয়াটিক অ্যামাইলেজসহ আরো কিছু এনজাইমের কার্যকারিতা বহুগুণ বেড়ে যায়। ফলে পান্তা ভাতের জটিল শর্করাগুলো খুব সহজেই হজম হয়ে যায়। এ ছাড়া পান্তা ভাত ভিটামিন বি ৬ ও বি ১২-এর ভালো উৎস। দেহের বহু উপকারী ব্যাকটেরিয়া পান্তা ভাতে তৈরি হয়। পেটের নানা সমস্যা, বিশেষ করে কোষ্ঠবদ্ধতা দূর হয়।

পান্তা ভাত শরীর সতেজ রাখে, তাপের ভারসাম্য বজায় রাখে। পান্তা ভাত খেলে রক্তচাপ স্বাভাবিক থাকে। সুস্থ থাকে হৃদযন্ত্র।

তাই, পান্তা ভাত খান। সুস্থ ও সতেজ থাকুন। দীর্ঘ দিন বাঁচুন।

Comments

comments

Leave a comment

ফেসবুকে আমরা

লেখা পাঠান

আপনিও লিখতে পারেন। হতে পারেন আপনার জেলা কিংবা উপজেলার প্রতিনিধি।

সিভি পাঠান


news@digitalbangla24.com

সর্বশেষ সংবাদ

উপরে